Home ত্রিপুরা ধর্মনগর সরকারি মহাবিদ্যালযয়ে সাইবার ক্রাইম এবং ড্রাগসের অপব্যবহার নিয়ে একদিনের সচেতনতা শিবির অনুষ্ঠিত।

ধর্মনগর সরকারি মহাবিদ্যালযয়ে সাইবার ক্রাইম এবং ড্রাগসের অপব্যবহার নিয়ে একদিনের সচেতনতা শিবির অনুষ্ঠিত।

by admin
0 comment 92 views

ধর্মনগর প্রতিনিধি।
মঙ্গলবার ধর্মনগর সরকারি মহাবিদ্যালয় রাজ্য আরক্ষা দপ্তরের উদ্যোগে সাইবার ক্রাইম এবং ড্রাগসের অপব্যবহার নিয়ে একদিনের সচেতনতা শিবির অনুষ্ঠিত হয়। উপস্থিত ছিলেন উত্তর জেলা ডিআইজি মনচার ইপে্পর এবং উত্তর জেলার পুলিশ সুপার ভানুপদ চক্রবর্তী। মহাবিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীদের উদ্দেশ্যে এই সচেতনতা শিবির মূলত অনুষ্ঠিত হয়। যেভাবে ক্রমবর্ধমান সাইবার ক্রাইমের ফক্করে পড়ে মানুষ সর্বস্ব হারাচ্ছে এবং নিঃস্ব হয়ে পুলিশের কাছে যাচ্ছে তা থেকে মানুষকে বাঁচাতে এই শিবিরের আয়োজন করা হয়। যে কোন মেসেজে ওটিপি কেউ যদি চায় তাহলে ওটিপি না দিতে বা কোন ধরনের সন্দেহ দেখা দিলে সাথে সাথে পুলিশকে জানাতে। তাহলে যারা সাইবার ক্রাইমের চক্র চালিয়ে মানুষকে দিনের পর দিন নিঃস্ব করে দিচ্ছে তাদের উদ্দেশ্য সাধিত হবে না। আর ড্রাগসের অপব্যবহার থেকে নিজেদেরকে বাঁচানোর পাশাপাশি সমাজ তথা দেশকে কেমন করে বাঁচানো যায় তা এই সচেতনতামূলক শিবিরে তুলে ধরা হয়। ডিআইজি বলেন ভারতের ৬৬ শতাংশ জনগণই হচ্ছে ৩৫ বছরের নিচে। অর্থাৎ পৃথিবীর সবচেয়ে বেশি যুবশক্তি রয়েছে বর্তমানে ভারতের কাছে। এই যুবশক্তিকে নির্ভর করে ভারত পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ অর্থনৈতিক দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠা পাওয়ার যে স্বপ্ন দেখছে তাকে ধ্বংস করে দেওয়ার জন্য প্রচুর বিদেশী শক্তি সুযোগ খুঁজে বেড়াচ্ছে। আর যুব শক্তিকে ড্রাগসের কবলে ফেলে দিতে পারলে তাদের আকাঙ্খিত আশা পূরণ হয়ে যাবে। একদিকে চীন, পাকিস্তান এবং উত্তর পূর্বাঞ্চলের তিন দিকেই বিদেশি শক্তি গুলি উৎপেতে বসে আছে কেমন করে ভারতের যুব সমাজকে ড্রাগসের কবলে ফেলে নষ্ট করে দিয়ে ভারতের ভবিষ্যতের যে অর্থনীতির সমৃদ্ধির চিন্তাধারা তা ধূলিসাৎ করে দিতে। তাই কোনোভাবেই যাতে কোন ধরনের প্রলোভনে পড়ে যুব সমাজ ড্রাগসে আসক্ত না হয় তার প্রতি সজাগ থাকার জন্য সচেতন করা হয়। তাছাড়া ইদানিং কালে যেসব সাইবার ক্রাইমের খপ্পরে পড়ে মানুষ সর্বস্ব হয়েছে সেগুলি কেমন করে হয়েছে বা তাদেরকে কেমন করে বাঁচানো সম্ভব হতো তাই নিয়ে এক দীর্ঘ আলোচনা আয়োজন করা হয়।

Related Post

Leave a Comment